শুক্রবার, ২০ আগস্ট, ২০২১

মুক্তিযুদ্ধে বৃহৎ শক্তিবর্গের ভূমিকা – বিসিএস পরীক্ষা প্রস্তুতি – Role of other countries in Liberation war of Bangladesh – BCS Exam Preparation

 

BCS Exam preparation,General knowledge,সাধারণ জ্ঞান - বাংলাদেশ,বিসিএস পরীক্ষা প্রস্তুতি,মুক্তিযুদ্ধে বৃহৎ শক্তিবর্গের ভূমিকা

মুক্তিযুদ্ধে বৃহৎ শক্তিবর্গের ভূমিকা বিসিএস পরীক্ষা প্রস্তুতি Role of other countries in Liberation war of Bangladesh – BCS Exam Preparation

-বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময়ে বিশ্বব্যাপী বিরাজমান ছিল--- স্নায়ুযুদ্ধ (ঠান্ডা লড়াই); বিশ্ব ছিল দুই ব্লকে বিভক্ত মার্কিন নেতৃত্বাধীন গণতান্ত্রিক ব্লক সোভিয়েত ইউনিয়নের নেতৃত্বাধীন সমাজতান্ত্রিক ব্লক।।

-বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে অবস্থান নিয়েছিল সমাজতান্ত্রিক ব্লক (সোভিয়েত ইউনিয়ন, ভারত অধিকাংশ সমাজতান্ত্রিক দেশ), বালাদেশের বিপক্ষে ছিল-- মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র চীন।

-বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় ব্রিটেন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন এডওয়ার্ড হীথ, ভারতের ইন্দিরা গান্ধী; চীনের চৌ এন লাই।। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় সোভিয়েত ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট ছিলেন- নিকোলাই পদগর্নি, যুক্তরাষ্ট্রের রিচার্ড নিক্সন এবং জাতিসংঘের মহাসচিব ছিলেন- উথান্ট (মিয়ানমার)।।

-বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন- হেনরি কিসিঞ্জার; সোভিয়েত পররাষ্ট্রমন্ত্রী আন্দ্রেই গেমিকো।

-মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশ ভারতের সমন্বয়ে যৌথ বাহিনী গঠিত হয়- ২১ নভেম্বর, ১৯৭১

-যৌথ বাহিনীর কমান্ডার ছিলেন জেনারেল জগজিৎ সিং অরোরা।

-মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষে যুক্তরাষ্ট্র যে নৌবহর প্রেরণ করেছিল ৭ম নৌবহর (এন্টারপ্রাইজ); প্রশান্ত মহাসাগরে যুক্তরাষ্ট্রের সপ্তম নৌবহরের সদরদপ্তর-- ইউকোসুক। সপ্তম নৌবহর যাত্রা শুরু করেছিল-- ভিয়েতনামের টংকিং উপসাগর থেকে।

-বাংলাদেশকে প্রথম স্বীকৃতিদানকারী দেশ ভুটান, দ্বিতীয় ভারত, ( ডিসেম্বর, ১৯৭১); মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র স্বীকৃতি দেয়- এপ্রিল, ১৯৭২, চীন-- ৩১ আগস্ট ১৯৭৫, পাকিস্তান- ২২ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭৪; সোভিয়েত ইউনিয়ন ২৪ জানুয়ারি ১৯৭২

-পূর্ব পাকিস্তানে পাকিস্তানি বর্বরতার খবর সর্বপ্রথম বহির্বিশ্বে প্রকাশ করেন সাংবাদিক সাইমন ড্রিং দ্য ব্লাড টেলিগ্রাম গ্রন্থটির লেখক-- গ্যারি জে ব্যাস।

-বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে বহির্বিশ্বে এর প্রচারের প্রধান কেন্দ্র ছিল-- লন্ডন। বিচারপতি আবু সাইদ চৌধুরীর নেতৃত্বে এখানে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল Steering Committee.

-বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় শরণার্থীদের সাহায্যার্থে নিউইয়র্কে আয়োজিত সংগীতানুষ্ঠানের নাম The concert for Bangladesh; অনুষ্ঠানের আয়োজক ছিলেন পণ্ডিত রবি শংকর ব্রিটিশ গায়ক জর্জ হ্যারিসন; হ্যারিসন ব্রিটিশ নাগরিক তার ব্যান্ড দলের নাম বিটলস; অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন বব ডিলান, এরিক ক্লাপটন, লিয়ন রাসেল, বিলি প্রিস্টন, ওস্তাদ আয়াত আলী খা প্রমূখ। এতে ৪০ হাজার লোকর সমাগম হয়। (বব ডিলান ২০১৬ সালে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার লাভ করেন। কনসার্ট ফর বাংলাদেশ অনুষ্ঠিত হয় আগস্ট, ১৯৭১

-ভারত পাকিস্তানের সাথে যুদ্ধে সরাসরি জড়িয়ে পড়ে - ডিসেম্বর পাকিস্তান ভারত আক্রমণ করলে বাংলাদেশের যুদ্ধ বিরতির লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্র জাতিসংঘে প্রস্তাব উত্থাপন করেন- , ১৩ ডিসেম্বর, ১৯৭১; প্রস্তাবে ভেটো প্রদান করে সোভিয়েত ইউনিয়ন।

-বাংলাদেশের জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভে ভেটো প্রদান করে চীন।

-১৯৭১ সালে বাংলাদেশে প্রবেশ করে দুই লক্ষাধিক ভারতীয় সেনা;

-ভারতীয় সেনারা বাংলাদেশে অবস্থান করে-তিন মাস

-বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে রাজনীতির কবি বলে আখ্যা দেয় বিখ্যাত ম্যাগাজিন নিউজ উইকস।

-বাংলাদেশকে স্বীকৃতিদানকারী প্রথম ইউরোপীয় দেশ- পূর্ব জার্মানি, প্রথম সমাজতান্ত্রিক দেশ পোল্যান্ড, প্রথম আরব দেশ ইরাক, প্রথম আফ্রিকান দেশ- সেনেগাল, প্রথম উত্তর আমেরিকান দেশ বার্বাডোস, প্রথম দক্ষিণ আমেরিকান দেশ ভেনিজুয়েলা, প্রথম মুসলিম দেশ- সেনেগাল, প্রথম এশীয় মুসলিম দেশ- মালয়েশিয়া ইন্দোনেশিয়া (২৫ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭২)

-বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে নিহত মাদার মারিওভেরেনজি ছিলেন--ইতালির নাগরিক।

-১৯৭১ এর মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচারের জন্য যে আইনে ট্রাইব্যুনাল গঠিত হয় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল) আইন, ১৯৭৩ ১৯৭৩ সালের ১৯ নং আইন।

-যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের জন্য ট্রাইব্যুনাল গঠিত হয় দুটি। প্রথম ট্রাইব্যুনাল গঠিত হয়- ২৫ মার্চ, ২০১০ দ্বিতীয় ট্রাইব্যুনাল গঠিত হয়- ২২ মার্চ, ২০১২ চূড়ান্ত বিচারপ্রক্রিয়া সম্পন্ন করার পর পর্যন্ত (সেপ্টেম্বর, ২০১৬) মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে- জনের।

-যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের বর্তমান চেয়ারম্যান বিচারপতি শাহিনুর ইসলাম

 

বিভিন্ন দেশ কতৃক বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দান

দেশের নাম - সময়কাল

ভারত - ডিসেম্বর, ১৯৭১

ভুটান - ৬ ডিসেম্বর, ১৯৭১

পোল্যান্ড। - ১২ জানুয়ারি, ১৯৭২

মায়ানমার - ১৩ জানুয়ারি, ১৯৭২

সোভিয়েত ইউনিয়ন (বর্তমানে রাশিয়া) - ২৪ জানুয়ারি, ১৯৭২

অস্ট্রেলিয়া -৩১ জানুয়ারি, ১৯৭২

সেনেগাল - ১ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭২

যুক্তরাজ্য - ৪ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭২

অস্ট্রিয়া - ৮ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭২

জাপান  - ১০ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭২

ফ্রান্স - ১৪ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭২

কানাডা - ১৪ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭২

যুক্তরাষ্ট্র - ৪ এপ্রিল, ১৯৭২

ব্রাজিল - ১৫ মে, ১৯৭২

ইরাক - ৮ জুলাই, ১৯৭২

ইরান - ২২ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭৪

চীন - ৩১ আগস্ট, ১৯৭৫

[বি. দ্র : স্বীকৃতির ক্রমানুসারে কেবল গুরুত্বপূর্ণ দেশগুলোর নাম উল্লেখ করা হয়েছে। ]

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Trending