শনিবার, ২১ আগস্ট, ২০২১

বীরশ্রেষ্ঠের সংক্ষিপ্ত পরিচয় – বিসিএস পরীক্ষা প্রস্তুতি – সাধারণ জ্ঞান – Beer shreshtho – BCS Exam Preparation

Beer shreshtho,বীরশ্রেষ্ঠের সংক্ষিপ্ত পরিচয়,বিসিএস পরীক্ষা প্রস্তুতি,সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ,BCS Exam Preparation,
বীরশ্রেষ্ঠের সংক্ষিপ্ত পরিচয় বিসিএস পরীক্ষা প্রস্তুতি সাধারণ জ্ঞান Beer shreshtho – BCS Exam Preparation

বীরশ্রেষ্ঠদের তালিকা নিচের সারণিতে দেয়া হল:-

ক্রম

নাম

পদবী

সেক্টর

গ্যাজেট নম্বর

মৃত্যুবরণের তারিখ

সমাধিস্থল :


০১

মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর

ক্যাপ্টেন

বাংলাদেশ সেনা বাহিনী ৭নং  

০১

ডিসেম্বর ১৪, ১৯৭১ - চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনা মসজিদ প্রাঙ্গণ


০২

হামিদুর রহমান

সিপাহী

বাংলাদেশ সেনা বাহিনী ৪নং  

০২

অক্টোবর ২৮, ১৯৭১ - মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থান


০৩

মোস্তফা কামাল

সিপাহী

বাংলাদেশ সেনা বাহিনী ২নং  

০৩

এপ্রিল ১৮, ১৯৭১ - ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ার দরুইন গ্রামে


০৪

মোহাম্মদ রুহুল আমিন

ইঞ্জিনরুম আর্টিফিসার

বাংলাদেশ নৌ বাহিনী ১০ নং  

০৪

ডিসেম্বর ১০, ১৯৭১ - রূপসা ফেরিঘাটের লুকপুরে


০৫

মতিউর রহমান

ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট

বাংলাদেশ বিমান বাহিনী

০৫

আগস্ট ২০, ১৯৭১ -  মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থান


০৬

মুন্সি আব্দুর রউফ

ল্যান্স নায়েক

বাংলাদেশ রাইফেলস ১নং

০৬

এপ্রিল ৮,১৯৭১ - রাঙামাটি শহরের রিজার্ভ বাজারে কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারের পাশে


০৭.

নূর মোহাম্মদ শেখ

ল্যান্স নায়েক

বাংলাদেশ রাইফেলস ৮নং

০৭

সেপ্টেম্বর ৫, ১৯৭১ -  যশোরের কাশিপুর নামক স্থানে










 

-বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীরের নামে সড়ক আছে রাজশাহীতে, রউফ নগর অবস্থিত - মধুখালী, ফরিদপুর।

-বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমানের দেহাবশেষ দেশে আনা হয়েছে- পাকিস্তান থেকে (২৫ জুন, ২০০৬), সিপাহি হামিদুর রহমানের দেহাবশেষ আনা হয়েছে ভারত থেকে (১১ ডিসেম্বর, ২০০৭)। তিনি হলেন সর্বকনিষ্ঠ বীরশ্রেষ্ঠ।

-বীরশ্রেষ্ঠদের মধ্যে সর্বপ্রথম নিহত হন মুন্সী আবদুর রউফ (৮ এপ্রিল, ১৯৭১) সর্বশেষে নিহত হনমহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর (১৪ ডিসেম্বর, ১৯৭১)

-বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমানের জীবন নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্রের নাম অস্তিত্বে আমার দেশ।

-বীরপ্রতীক খেতাবপ্রাপ্ত দুই জন মহিলা মুক্তিযোদ্ধা তারামন বিবি (কুড়িগ্রাম) ও সেতারা বেগম (কিশোরগঞ্জ)

-সর্বকনিষ্ট খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা শহীদুল ইসলাম (বীর প্রতীক)

-বিদেশি খেতাবপ্রাপ্ত (বীরপ্রতীক) মুক্তিযোদ্ধা ডব্লিউ এইচ ওডারল্যান্ড, জন্ম নেদারল্যান্ড, (নাগরিক অস্ট্রেলিয়ার); একমাত্র আদিবাসী খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা-ইউকে চিং (বীর বিক্রম)

-বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে অবদানের সর্বোচ্চ খেতাব বীরশ্রেষ্ঠ প্রদান করা হয়- যুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী বীরদের; আর জীবিত বীরদের জন্য সর্বোচ্চ খেতাব- বীর উত্তম।

-তারামন বিবি মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন -১১ নং সেক্টরের (ময়মনসিংহ ও টাঙ্গাইল)

-ডাক্তার সেতারা বেগম মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন- ২ নং সেক্টরের। তিনি সরাসরি যুদ্ধে অংশ না নিলেও মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসায় ব্যাপক অবদান রাখেন।

-মুক্তিবেটি নামে পরিচিত নারী মুক্তিযোদ্ধা- কাকন বিবি।।  

-বাংলাদেশের নিজস্ব ডাক টিকেট প্রবর্তন করা হয়- ২৯ জুলাই, ১৯৭১; প্রকাশ করে মুজিবনগর সরকার। প্রথম স্মারক ডাক টিকেট প্রকাশিত হয়- ২১ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭২। প্রথম স্মারক ডাক ক্রিকেটের ডিজাইনার বিপি চিনিশ। ডাক টিকেটে ছবি ছিল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের।

-স্বাধীন বাংলা ফুটবল দল গঠিত হয়- ১৯৭১ সালে।

-মুক্তিযোদ্ধা দিবস--১ ডিসেম্বর।

-স্বাধীনতা লাভের পর বাংলাদেশ প্রথম সদস্যপদ লাভ করে- কমনওয়েলথের (১৮ এপ্রিল, ১৯৭২), বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সদস্যপদ লাভ- ১৭ মে, ১৯৭২; ন্যামের-- ৫ সেপ্টেম্বর, ১৯৭৩; ওআইসির-- ২৩ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭৪ এবং জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভ করে-- ১৭ সেপ্টেম্বর, ১৯৭৪ সালে (১৩৬তম)

-বাংলাদেশ জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভ করে জাতিসংঘের ২৯তম অধিবেশনে; এ অধিবেশনেই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে প্রথম বাংলায় ভাষণ প্রদান করেন।

-বাংলাদেশ জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্যপদ লাভ করে২ বার (১৯৭৯-৮০ এবং ২০০০-২০০১ সালে)

-জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের প্রথম বাংলাদেশী সভাপতি-- হুমায়ুন রশীদ চৌধুরী (৪১তম অধিবেশন);

-জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রথম বাংলাদেশী সভাপতি আনোয়ারুল করিম চৌধুরী।

-এ পর্যন্ত চারজন জাতিসংঘ মহাসচিব বাংলাদেশ সফর করেন। তারা হলেনকুর্ট ওয়ার্ল্ড হেইম (১৯৭৩), পেরেজ দ্য কুয়েলার (১৯৮৯), কফি আনান (২০০১), বান কি মুন (২০০৮, ২০১১)

-বাংলাদেশ জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে প্রথম অংশগ্রহণ করে- ১৯৮৮ সালে, UNIMOG মিশনে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Trending